আপনি যখনই গুগুলে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং করতে যাবেন তখনই আপনার পিপিসি বা ক্লিক ভিত্তিক বিজ্ঞাপনের আশ্রয় নিতে হবে। আর যখনই আপনি পিপিসি বিজ্ঞাপন দিবেন তখন গুগুল আপনার বিজ্ঞাপনটিকে একটি কোয়ালিটি স্কোর দিয়ে রাখবে। এই কোয়ালিটি স্কোর খুবই গুরুত্বপূর্ণ! যদিও আমরা ইতোমধ্যে কোয়ালিটি স্কোর সম্পর্কে পূর্বের আর্টিকেলে বিস্তারিত আলাপ করেছিলাম, তবে এবার আপনার কথা বলব এই কোয়ালিটি স্কোরের পার্টিকুলার একটি ইস্যু ক্লিক থ্রু রেট Click-Through Rate বা CTR সম্পর্কে।

পিপিসি ক্যাম্পেইনে Click-Through Rate বা CTR কি এবং কেনই বা এটা এত গুরুত্বপূর্ণ?

আপনার বিজ্ঞাপন কতজন দেখেছে এবং তাদের মধ্যে কতজন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করেছে সেটাই এই পর্বের আলোচ্য বিষয়। যদি অনেক মানুষ দেখে আর তাদের মধ্যে অল্প সংখ্যক মানুষ ক্লিক করে তাহলে বুঝতে হবে আপনার কোয়ালিটি স্কোর ডাউন হয়ে যাচ্ছে। কেননা বিজ্ঞাপন পৌঁছে যাওয়া মানুষের মধ্যে যদি বেশি মানুষ ক্লিক করে,

তাহলে  সেই বিজ্ঞাপনটিকে গুগুল আলাদা ভাবে গুরুত্বের সাথে নিবে। কেননা আদতে একটি বিজ্ঞাপনে যত বেশি ক্লিক আসবে সার্চ ইঞ্জিন বা বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক তত বেশি আয় করে থাকবে।

আর সার্চ ইঞ্জিন এত ভালো করে কীভাবে আপনার বিজ্ঞাপনটি সবার মধ্যে পৌঁছে দিতে পারবে? এর কারণ হল, সবাই কোন না কোন কারণে সার্চ ইঞ্জিনে যে কোন কিছু লিখে সার্চ করে। ধরুন আপনি গুগুলে সার্চ দিয়েছেন ভালো বাইসাইকেল সম্পর্কে। এখন গুগুল আপনার সার্চ দেখেই বুঝতে পারবে আপনি কি সাইকেল ক্রয় করতে চাচ্ছেন কি না!

আর তাই আপনার সার্চ অনুযায়ী বেশ কিছু সার্চ রেজাল্ট এখানে দেখানো হবে। এর সাথে সাথে সার্চ রেজাল্টের একদম প্রথম দিকে কয়েকটি বিজ্ঞাপন দেখানো হবে, যেগুলো আদতে আপনাকে আগ্রহী করে তুলবে।

বিজ্ঞাপন ছাড়াও যে রেজাল্টগুলো আসে সেগুলো হল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে। এই ইস্যুতেও আপনি যদি বেশ কিছু বিষয় মেনে চলতে পারেন তাহলে সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্টে আপনার ওয়েবসাইটকে প্রথম পেজে নিয়ে আসতে পারবেন।

এভাবেই আদতে সার্চ ইঞ্জিন যে কোন সার্চের ক্ষেত্রে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে থাকে। এখন মনে করেন আপনি সার্চ দিয়েছেন বাইসাইকেল নিয়ে কিন্তু আপনার কাছে যদি গাড়ির বিজ্ঞাপন আসে তাহলে তো সেটা অবশ্যই আপনার বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

আর এক্ষেত্রে গুগুল সবসময় আপনার বিরক্তির কারণ হতে চায় না, আর তাই আপনার কাছে সঠিক বিজ্ঞাপনটি পৌঁছে দেয়া গুগুলে প্রধান লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য!

Click-Through Rate বা CTR কি?

ধরুন আপনার দেয়া পিপিসি বিজ্ঞাপনটি এক হাজার মানুষের কাছে পৌঁছেছে। এখন সেই এক হাজার মানুষের মধ্যে কতজন আপনার বিজ্ঞাপনটি দেখার পর ক্লিক করেছেন সেটাই Click-Through Rate বা CTR কি।

এভাবেই এক হাজার জন এর মধ্যে যদি ১০০ জন আপনার বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে থাকে তাহলে আপনার Click-Through Rate বা CTR হবে ১০%। অর্থাৎ শতকরা প্রতি একশ জনের মধ্যে দশজন আপনার বিজ্ঞাপনের ক্লিক করেছে।

পিপিসি ক্যাম্পেইনে Click-Through Rate বা CTR কি এবং কেনই বা এটা এত গুরুত্বপূর্ণ?

এই রেটের মাধ্যমে বুঝা যাবে যে আদতে মানুষ আপনার বিজ্ঞাপনটি কতটা পছন্দ করছে। কেননা তাদের পছন্দ হলেই কেবল তারা ক্লিক করবে। আপনার Click-Through Rate বা CTR যদি কম থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার বিজ্ঞাপনটি মানুষ পছন্দ করছে না।

অপরদিকে আপনার Click-Through Rate বা CTR যদি বেশি থাকে তাহলে খুব সহজেই বুঝতে পারবেন যে মানুষ আপনার বিজ্ঞাপন পছন্দ করছে এবং ক্লিক করছে।

যদিও আদতে শুধুমাত্র ক্লিক পাওয়াই আপনার একমাত্র উদ্দেশ্য নয়। এই জায়গাতেই অনেকে ভুল করে থাকেন। বিভিন্ন চাটুকদার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রচুর ক্লিক আসলেও তাদের পণ্য সেল হয় না সেই অনুযায়ী। অথবা ইউজার বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে যখন ল্যান্ডিং পেজে পৌঁছে যায় তখন তার কাছে সেটা তেমন একটা ভালো লাগে না।

আর ভালো না লাগলে ইউজার তখন ল্যান্ডিং পেজ থেকে সাথে সাথে বের হয়ে যায় আর সেই সাথে আপনার কোয়ালিটি স্কোরও কমতে থাকে।

আর তাই আপনার প্রধান উদ্দেশ্য থাকতে হবে যত বেশি সংখ্যক মানুষ আপনার ল্যান্ডিং পেজে নিয়ে আসতে হবে এবং পরবর্তীতে তাদের মধ্যে থেকে সর্বচ্চ সংখ্যক ব্যক্তির কাছে নিজের পণ্য বা সার্ভিস বিক্রয় করা। বর্তমানে কোন ধরণের কোডিং জানা ছাড়াই আপনি এলিমেন্টর প্রো দিয়ে একটি চমৎকার ল্যান্ডিং পেজ তৈরি করে নিতে পারবেন।

ভালো Click-Through Rate বা CTR কীভাবে বুঝবেন?

আপনার বিজ্ঞাপনের জন্য সবচাইতে ভালো Click-Through Rate বা CTR কত হওয়া উচিৎ এটা আসলে নির্ভর করে সম্পূর্ণ আপনি যে বিষয়ে বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন সেই বিষয়ের উপর। এই বিষয়ের ভোক্তা বা ইউজার যদি অনেক বেশি হয়ে থাকে তাহলে আপনার বিজ্ঞাপনে সেই অনুপাতে Click-Through Rate বা CTR হওয়া উচিৎ।

পিপিসি ক্যাম্পেইনে Click-Through Rate বা CTR কি এবং কেনই বা এটা এত গুরুত্বপূর্ণ?

আর এই ভালো Click-Through Rate বা CTR কি নির্ভর করছেঃ

** আপনার বিজ্ঞাপনের বিষয়টির উপর

** যে কিওয়ার্ডের বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন তার উপর

** আপনার নির্দিষ্ট বিজ্ঞাপনের স্ট্র্যাটেজি এবং স্টাইলের উপর

Click-Through Rate বা CTR কীভাবে বিজ্ঞাপনের র‍্যাংকিং নির্ধারণ করে?

আপনার বিজ্ঞাপনটিতে কত মানুষ ক্লিক করেছে তার উপরেই নির্ভর করছে বিজ্ঞাপনটি আদৌ কিওয়ার্ডের সাথে রিলেভেন্ট কি না। যদি দেখা যায় যে আপনার বিজ্ঞাপন কিওয়ার্ডটি থেকে একদমই ক্লিক পাচ্ছে না তখন গুগুল কিন্তু নিজ থেকেই বিজ্ঞাপনটি হোল্ডে রেখে দেয় লো কোয়ালিটি স্কোরের মাধ্যমে।

তবে এখানে একটি জিনিস আপনার বুঝতে হবে যে গুগুল শুধুমাত্র সবচাইতে বেশি টাকা দিলেই বেশি বিজ্ঞাপন দেখাবে, মোটেও এমন নয়। সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগুল কেন এখনো সবার শীর্ষে অবস্থান করছে? কেননা গুগুল সবসমই সবথেকে বেশি প্রাধান্য দিয়েছে কোয়ালিটির দিকে। আর সেটা হোক আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট অথবা আপনার বিজ্ঞাপনের কন্টেন্ট।

আপনার বিজ্ঞাপন অবশ্যই কিওয়ার্ড এর সাথে ভালো সামঞ্জস্যতা বজায় রাখতে হবে। তা না হলে আপনার বিজ্ঞাপনের র‍্যাংকিং নিচে নেমে যাবে। আর র‍্যাংকিং নিচে নেমে গেলে আদতে কি হয় সেটা আমরা পূর্বের আর্টিকেলে বলার চেষ্টা করেছি, আপনি যদি সেটা মিস করে থাকেন তাহলে এখনই পড়ে নিতে পারেন।

পিপিসি ক্যাম্পেইনে Click-Through Rate বা CTR কি এবং কেনই বা এটা এত গুরুত্বপূর্ণ?

আপনার বিজ্ঞাপনে যদি প্রচুর মানুষ ক্লিক করে থাকে তাহলে গুগুল প্রথমেই অটোমেটিক ভাবে আপনার বিজ্ঞাপনকে প্রাধান্য দিবে। আর ভালো ভালো প্লেসমেন্টগুলোতে সবার প্রথমে আপনার বিজ্ঞাপন দেখানো হবে। আপনার বিজ্ঞাপন দেখানো শেষ হলেই তবে অন্য কারো বিজ্ঞাপন দেখাবে।

ঠিক একই ভাবে আপনার বিজ্ঞাপন যদি র‍্যাংকিং এ নিচের দিকে নেমে যায় তাহলে প্রথমে অন্য কারো বিজ্ঞাপন দেখে ভোক্তা পণ্যটি ক্রয় করে ফেলা বা সার্ভিসটি ক্রয় করে ফেলার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।

আর তাই আপনি যত বেশি টাকা দিতে চান না কেন গুগুলকে, গুগুল Click-Through Rate বা CTR এর মাধ্যমে আপনার বিজ্ঞাপনের কোয়ালিটি যাচাই করার চেষ্টা করবে এবং সেভাবেই আপনার বিজ্ঞাপনকে র‍্যাংকিং করবে।

Click-Through Rate বা CTR কিভাবে কোয়ালিটি স্কোর নির্ধারণে ভূমিকা রাখে?

পুরো ব্যাপারটি বেশ সহজ! আপনার বিজ্ঞাপনে অনেক মানুষ ক্লিক করছে এবং ল্যান্ডিং পেজে বেশ কিছু সময় ধরে থাকছে। আবার সেই ক্লিক করা মানুষদের মধ্যে সর্বচ্চ সংখ্যক মানুষ আপনার সেবাটি গ্রহণ করছে। ব্যাস! গুগুলের জন্য এতটুকই যথেষ্ট।

গুগুল অবশ্যই আপনার বিজ্ঞাপনটিকে প্রাধান্য দিবে এবং এই ক্লিকের রেশিও বা রেট এভাবেই আপনার বিজ্ঞাপনের কোয়ালিটি স্কোর নির্ধারণে বিস্তারিত ভূমিকা পালন করে থাকে।

আদতে গুগুলের সবকিছুই সফটওয়্যারের মাধ্যমে চলে, আর তাই গুগুলের সফটওয়্যার এই ধরণের বিষয়গুলোকে বিবেচনায় রেখেই আপনাকে একটি কোয়ালিটি স্কোর প্রদান করবে। ঠিক এজন্যই আপনার বিজ্ঞাপনের কোয়ালিটি এবং আকর্ষণীয় করে তোলাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। গুগুল বিজ্ঞাপনে এখন টেক্সট বোল্ড করার মাধ্যমেও কিন্তু খুব চমৎকার ভাবে বিজ্ঞাপনকে আকর্ষণীয় করে তোলা যায়।

Click-Through Rate বা CTR কম থাকলেও কখন সমস্যা হবে না?

এখন আপনার মনে একটি প্রশ্ন আসতেই পারে, যে তাহলে কি সবগুলো বিজ্ঞাপনকেই CTR বেশি হওয়ার জন্য ভালোভাবে অপটিমাইজ করতে হবে? বিজ্ঞাপনে সর্বচ্চ ক্লিক আপনাকে নিয়ে আসতেই হবে?

এর উত্তর হল, না!

কি, শুনে অবাক হচ্ছেন? হ্যাঁ! পিপিসি বা ক্লিক ভিত্তিক বিজ্ঞাপনের সফলতা শুধুমাত্র CTR রেট বেশি হওয়া বা বিজ্ঞাপনের র‍্যাংকিং বৃদ্ধি করানো নয়। বরং তথ্য এবং উপাত্ত অনুযায়ী ডেটা ড্রিভেন পদ্ধতিতে সর্বচ্চ সফলতা নিশ্চিত করা এবং ভোক্তার কাছে নিজের আস্থার জায়গা তৈরি করে নেয়াই সবচাইতে জরুরী।

কেননা আপনি হয়ত “ফ্রি আইফোন জিতে নিন” শিরোনামে এমন একটি বিজ্ঞাপন দিলেন। আর দেখলেন যে হাজার হাজার মানুষ সাথে সাথেই আপনার বিজ্ঞাপন ক্লিক করা শুরু করল। কিন্তু এসে যখন দেখল এখানে অনেক ধরণের শর্ত প্রযোজ্য যেমন তিনটি আইফোন কিনলে একটি ফ্রি বা এই ধরণের কথা। তখন ভোক্তারা আপনার উপর থেকে অবশ্যই আস্থা হারিয়ে ফেলবে।

এখন তাহলে প্রশ্ন এই ডাটা ড্রিভেন পদ্ধতিতে ক্যাম্পেইন পরিচালনা করে মানুষের আস্থা অর্জন কীভাবে করবেন? গুগুলের অনেকগুলো ফ্রি টুলস রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে ভোক্তাদের চাহিদা এবং সমস্যাগুলো খুব সহজেই নির্ণয় করতে পারবেন। আর সর্বদা ভোক্তাদের আস্থার জায়গাটি ধরে রাখার ব্যাপারে সর্বচ্চ গুরুত্ব দিবেন।

আপনি যদি সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং নিজে করেন এবং ফ্রিল্যান্সারের মাধ্যমে করে নেন, তাহলেও আপনাকে এই পিপিসি ক্যাম্পেইনের CTR সহ নানা বিষয় জেনে নিতে হবে। তাহলে যে কোন সমস্যায় আপনি নিজেই সমাধানে অনেক ভূমিকা রাখতে পারবেন।

উল্লেখ্য যে, ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে আমাদের একটি ধারাবাহিক লেখা রয়েছে। যেখানে আপনি ফেসবুক মার্কেটিং এর যাবতীয় খুঁটিনাটি জানতে পারবেন। এই লেখাটি পড়লে আপনাকে আরো কথাও কোন কোর্সও করতে হবে না। ফেসবুক মার্কেটিং এর পাশাপাশি আমাদের এই গুগুল পিপিসি বা ক্লিক ভিত্তিক মার্কেটিং এর এই ধারাবাহিক লেখাটিও আপনার যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর দিয়ে যাবে। ধৈর্য ধরে আমাদের সাথেই থাকুন, আশাকরি সর্বচ্চ সফলতা অর্জন করতে পারবেন। 

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to Top